১৩ এপ্রিল, ২০২৪
৩০ চৈত্র, ১৪৩০

‘নারী নেতৃত্ব হারাম’ বলা সেই ইউপি চেয়ারম্যানকে গ্রেফতারের দাবি

মোংলা : বাগেরহাটের মোংলায় এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যানের ‘নারী নেতৃত্ব হারাম’ উল্লেখ করে দেওয়া বক্তব্যের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন কয়েক হাজার নারী। বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় মোংলা পোর্ট পৌরসভার সামনে উপজেলা নারী সমাজের ব্যানারে এই মানববন্ধন করা হয়।

এমন বক্তব্যের জন্য মোংলা উপজেলার সুন্দরবন ইউপি চেয়ারম্যান ইকরাম ইজারাদারকে তার পদ থেকে অপসারণ চেয়ে গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়। দ্রুত সময়ের মধ্যে তাকে গ্রেফতার করা না হলে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ারও হুঁশিয়ারি দেন নারীরা।

জানা গেছে, ইউপি চেয়ারম্যান ইকরাম দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে গত ৭ জানুয়ারি স্বতন্ত্র প্রার্থী তার চাচা ইদ্রিস আলী ইজারাদারের প্রচারণায় অংশ নিয়ে এক পথসভায় এই বক্তব্য রাখেন। সে সময় তিনি বলেন, ‘আমরা গজবের ভেতর নিমজ্জিত আছি। এতে সন্দেহের কোনও অবকাশ নেই। জনমনে কোনও স্বস্তি নেই, শান্তি নেই; তার কারণ, নারী নেতৃত্ব হারাম। নারী নেতৃত্বের অধীনে আমরা এখানে রয়েছি। নারীরা সমাজনীতি ও রাজনীতির কী বোঝেন?’
এর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার নারীদের আয়োজনে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন– পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান কামরুন্নাহার হাই, সোনাইলতলা ইউপি চেয়ারম্যান নাজরিনা বেগম নারজিনা, মোংলা পোর্ট পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর জাহানারা হোসেন চাঁনু, শিউলি আকন, জোহরা বেগম, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী রাহিলা খানম বেবীসহ নারী অন্যরা।

বক্তারা বলেন, ‘ইউপি চেয়ারম্যান ইকরাম ইজারাদার রাষ্ট্র ও সংবিধানবিরোধী বক্তব্য দিয়ে পুরো নারী সমাজকে অপমান ও অসম্মান করেছেন। যেখানে দেশের প্রধানমন্ত্রী একজন নারী, স্পিকার একজন নারী। এ ছাড়া রাষ্ট্রের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নারীরা আসীন রয়েছেন। বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্রেও নারীদের আধিপত্য রয়েছে। এমনকি বিতর্কিত বক্তব্য দেওয়া ইকরাম ইজারাদার নারী প্রধানমন্ত্রীর অধীনেই নৌকা প্রতীক নিয়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।’

এই বক্তব্যের কারণে চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণসহ তাকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শান্তির দাবি জানান নারীরা।
Scroll to Top