১৮ এপ্রিল, ২০২৪
৫ বৈশাখ, ১৪৩১

টেস্টকে ‘না’ তাসকিনের, নমনীয় বিসিবি

মিরর স্পোর্টস : সর্বশেষ ওয়ানডে বিশ্বকাপ থেকেই চোটের সঙ্গে লড়ছেন তাসকিন আহমেদ। যে কারণে সর্বশেষ নিউজিল্যান্ড সফরেও ছিলেন না তিনি। চলমান বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) দিয়ে আবারও মাঠের ক্রিকেটে ফিরেছেন টাইগার পেসার। তবে এখনও তেমন ছন্দ ফিরে পাননি তাসকিন। বিপিএলে এখনও পর্যন্ত ৫ ম্যাচ খেলে মোটে ৫ উইকেট নিয়েছেন ডানহাতি এই পেসার।

এদিকে বিপিএলের পরই ব্যস্ত সূচি রয়েছে বাংলাদেশ দলের। ঘরের মাঠেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলবে টাইগাররা। এই সিরিজে তিনটি করে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে এবং দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে দুই দল। যেখানে টেস্ট সিরিজ খেলতে চাইছেন না পেসার তাসকিন আহমেদ। এই বিষয়ে কঠোর অবস্থানে না যাওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সিলেটে গণমাধ্যমের মূখোমুখি হন বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। এসময় তাসকিনের বিষয়ে জানতে চাইলে নান্নু বলেন, ‘ওর (তাসকিন) ব্যাপারটা মেডিকেল ডিপার্টমেন্ট দেখছে। আমরা অপেক্ষায় আছি। আমরা চাইব খুব দ্রুত আমাদের সেরা খেলোয়াড় যেন দলের সঙ্গে যোগ দেয়। ওর জন্য অপেক্ষায় থাকব। ইনশাআল্লাহ ও তাড়াতাড়ি খেলায় ফিরে আসবে সবদিক দিয়ে।’

আগামী জুন-জুলাইয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে অনুষ্ঠিত হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপে তাসকিনকে পুরোপুরি ফিট পেতে তাকে নিয়ে কোনো ঝুঁকি নিতে চায় না বোর্ড। তাসকিন চাইলে তাকে টেস্ট থেকে বিশ্রাম দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

তিনি বলেন, ‘যতটুকু খেলানো যায়, সেভাবেই খেলছে (তাসকিন)। আমরাও তাকে ওইভাবে খেলাচ্ছি। যার জন্য আমরা আগেও তাকে বিশ্রাম দিয়েছি। এখন যেটা হয়েছে সে আমাদের কাছে একটা চিঠি দিয়েছে, যেহেতু সামনে বিশ্বকাপ আছে এবং সাদা বলে অন্য সংস্করণেরও খেলা আছে। তো এই সিরিজটায় (শ্রীলঙ্কা) তাকে বিবেচনা না করলে ভালো হয় জানিয়েছে। বিশ্বকাপের ভালো প্রস্তুতির জন্য সে লঙ্গার ফরম্যাটে খেলতে চাচ্ছে না।’

বিপিএলের দশম আসরের ফাইনাল ম্যাচ হবে আগামী ১ মার্চ। সেদিনই বাংলাদেশে আসবে লঙ্কান বাহিনী। টাইগার-লায়নদের মাঠের লড়াই শুরু হবে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে। আগামী ৪, ৬ ও ৯ মার্চ সংক্ষিপ্ত সংস্করণের সিরিজে মুখোমুখি হবে দুই দল। সবগুলো ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

এরপর তিন দিনের বিরতি দিয়ে চট্টগ্রামে দুই দল নামবে ৫০ ওভারের লড়াইয়ে। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে মাঠে গড়াবে ১৩ মার্চ। এরপর ১৫ ও ১৮ মার্চ হবে শেষ দুই ওয়ানডে। চট্টগ্রাম যাত্রা শেষে দুদল আবার ফিরবে সিলেটে। সেখানে ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট। তিন দিনের বিরতি দিয়ে দুদল আবার চট্টগ্রামে ফিরে মুখোমুখি হবে দ্বিতীয় টেস্টে।

Scroll to Top