১৪ এপ্রিল, ২০২৪
১ বৈশাখ, ১৪৩১

‘বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডসের জাতির পিতার ভাগ্য একই ধরনের’

ঢাকা : বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডসের মধ্যে সম্পর্ক ‘উন্নয়ন সহযোগিতা’ থেকে ‘অর্থনৈতিক অংশীদারত্বে’ রূপান্তর হয়েছে; যেখানে এক দেশ অন্য দেশকে সম্মানের চোখে দেখে বলে মনে করেন দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী জাঁ পিটার বলকেনেন্ড। নেদারল্যান্ডসের হেগে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে দেওয়া বক্তব্যে তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মূল্যবোধ ও অবদান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব, বাংলাদেশের সামাজিক ও অর্থনৈতিক অগ্রগতি এবং দুই দেশের ক্রমবর্ধমান সম্পর্কের বিষয়ে আলোকপাত করেন। এসময় তিনি বলেন, ‘১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভ করে এবং একজন ব্যক্তি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ– জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।’

বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডসের জাতির পিতার ভাগ্য একই ধরনের জানিয়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু বাঙালিদের যে স্বপ্ন; সেটি পূরণ করেছিলেন। কিন্তু তিন বছর পর তাকে হত্যা করা হয়। একই ঘটনা ১৬ শতাব্দীতে আমাদের জাতির পিতা উইলিয়াম দি অরেঞ্জের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটেছিল। তাকেও ১৫৮৪ সালে হত্যা করা হয়েছিল।’

১৯৭২ সালে বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেওয়া প্রথম দেশগুলোর একটি হচ্ছে নেদারল্যান্ডস উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘প্রথম দিকে আমাদের মধ্যে সম্পর্ক শুরু হয়েছিল উন্নয়ন সহযোগিতা দিয়ে। এখন আমাদের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়ন সহযোগিতা থেকে অর্থনৈতিক অংশীদারত্বে রূপান্তর হয়েছে। আমাদের মধ্যে সম্পর্ক অনেক পরিবর্তন হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৫ সালে নেদারল্যান্ডসে এসেছিল। কুইন ম্যাক্সিমা জাতিসংঘের প্রতিনিধি হিসেবে বাংলাদেশ সফর করেছেন এবং এটি অত্যন্ত ভালো বিষয়।‘ এখন দুই দেশের ব্যবসায়ী, বিশ্ববিদ্যালয় ও এনজিওসহ সবার সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ছে বলেও তিনি জানান।

বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডস একে অপরকে সম্মান করে এবং উভয় দেশের জন্য লাভজনক এমন সমাধান খোঁজার বিষয়ে উভয়ে আগ্রহী বলেও মন্তব্য করেন জাঁ পিটার বলকেনেন্ড। তিনি বলেন, ‘এটি অত্যন্ত জরুরি। কারণ এখন আমরা বৈশ্বিক শঙ্কার মধ্যে বাস করছি। আমাদের একে অপরকে দরকার রয়েছে। বর্তমানে বিভিন্ন বিষয় মোকাবিলা করা এবং আগামী প্রজন্মের জন্য সুন্দর একটি পৃথিবীর জন্য আমাদের একে অপরকে দরকার।’

সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর মতে, এখন অর্থনীতি নিয়ে নতুন করে চিন্তার অবকাশ রয়েছে। তিনি বলেন, ‘গত ৩ হাজার বছরের ইতিহাসের দিকে তাকালে আমরা দেখবো— একটি অর্থনীতি তখনই সফল হয়, যখন একটি দেশের উদ্ভাবনী ক্ষমতা থাকে, আইনের শাসন এবং সমাজে শুধু উচ্চবিত্ত নয়, সব মানুষের অন্তর্ভুক্তি থাকে।’

বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডসের মধ্যে দীর্ঘদিনের সম্পর্ক উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘১৯৬৫ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানকে বন্যাসহ বিভিন্ন প্রতিকূলতা মোকাবিলায় পানি সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছিল নেদারল্যান্ডস। ১৯৫৩ সালে নেদারল্যান্ডসেও ভয়াবহ বন্যা হয়েছিল এবং অনেক লোক মারা গিয়েছিলেন। আমার নিজের পরিবারের লোকও মারা গিয়েছিল।’

জলবায়ু পরিবর্তনে বাংলাদেশ কী করছে, সেটির থেকে অনেক কিছু শেখার আছে এবং সেখানকার মানুষেরা কীভাবে এই পরিবর্তন মোকাবিলা করছে বলে তিনি জানান।

Scroll to Top