১৪ এপ্রিল, ২০২৪
১ বৈশাখ, ১৪৩১

জনগণের ওপর বিশ্বাস আছে, নৌকার জয় হবে-শেখ হাসিনা

ঢাকা অফিস : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের শুরুতেই রাজধানীর সিটি কলেজ কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। রবিবার সকাল ৮টার পরপরই ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন তিনি।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কন্যা ও অটিজম বিশেষজ্ঞ সায়মা ওয়াজেদ পুতুল। প্রধানমন্ত্রীর বোন শেখ রেহানা ও তার ছেলে রাদওয়ান মুজিব ছিলেন।

ভোট প্রদান করার পরে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা বলেন, আলহামদুলিল্লাহ! আজকে ইলেকশনটা যে আমরা সুষ্ঠুভাবে করতে পারছি তার জন্য আমি আমার দেশের প্রতি, দেশের মানুষের প্রতি, জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। অনেক বাধা ছিল, অনেক বিপত্তি ছিল, কিন্তু দেশের মানুষ তাদের ভোটের অধিকার সম্পর্কে সচেতন হয়েছেন।

তিনি বলেন, পাঁচ বছর শেষ করার পর নতুন সরকার আসবে, জনগণ তার ইচ্ছেমত ভোট দিবে। আর সেই ভোট দেওয়ার পরিবেশটা আমরা তৈরি করতে পেরেছি। তিনি আরও বলেন, আমাদের সামনে আরও কাজ আছে। নৌকা মার্কা জয়ী হবে। আবার আমরা সরকার গঠন করে দেশের উন্নতি করতে পারবো।

বিএনপি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেনা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি এবং জামায়াত জোটরা জ্বালাও-পোড়াও অনেক কিছু করেছে। ট্রেনে আগুন দেওয়া থেকে শুরু করে গাড়িতে আগুন দেওয়া, মানুষকে বাধা দেওয়া, বোমা হামলা, ককটেল মারার মতো কাজগুলো যারা করেছে তারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেনা, তারা দেশের কল্যাণ চায় না।

বিএনপির ভোটে অংশ না নেওয়া নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি একটা সন্ত্রাসী দল। তাদের হরতালের তালে বাংলাদেশের জনগণ নাচে না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে ২০০৯ সাল থেকে গণতন্ত্রের ধারা অব্যহত আছে বলেই দেশের এত উন্নয়ন হয়েছে।

আজ সকাল আটটা থেকে জাতীয় সংসদের ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৯টিতে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। একজন প্রার্থীর মৃত্যুর কারণে নওগাঁ-২ আসনের ভোট গ্রহণ বাতিল করা হয়েছে। ভোট গ্রহণ চলবে বিকাল চারটা পর্যন্ত।

Scroll to Top