১৪ এপ্রিল, ২০২৪
১ বৈশাখ, ১৪৩১

৭৮ রানে অল আউট, হারের হ্যাটট্রিক সিলেটের

মিরর স্পোর্টস : বিপিএলের চলতি আসরে প্রথম দুই ম্যাচেই হার নিয়ে মাঠ ছেড়েছিল সিলেট স্ট্রাইকার্স। অধরা জয়ের লক্ষ্যে আজ বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মুখোমুখি হয়েছিল তারা। তবে মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সেখানেও ব্যর্থ হয়েছে মাশরাফীর দল।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নির্ধারিত ২০ ওভারে আট উইকেটে ১৩০ রান সংগ্রহ করেছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। জবাবে ১৬.২ ওভারে ৭৮ রানে গুটিয়ে যায় সিলেট স্ট্রাইকার্স। ৫২ রানের পরাজয়ে হারের হ্যাটট্রিক করল দলটি।

এদিন রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই উইকেট হারাতে থাকে সিলেট। রানের খাতা খোলার আগেই রান আউট হন মোহাম্মদ মিঠুন। নাজমুল হোসেন শান্ত ৫, সামিত প্যাটেল ৪ ও ইয়াসির আলী ১ রানে সাজঘরে ফেরেন।

নিজের কোটার চতুর্থ ওভার মেইডেন নেয়ার পাশাপাশি দুই উইকেট নেন আলিস আল ইসলাম। যেখানে তার শিকার হন বেন কাটিং ও মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। এর মাধ্যমে ৪ উইকেট শিকার করেন তিনি।

সপ্তম উইকেটে বেন কাটিং ও জাকির হোসেনের ৪০ রানের জুটি শুধু হারের ব্যবধানটাই কমিয়েছে। জাকির দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন। এছাড়া ১৪ রানে আউট হন কাটিং। আর কেউ দুই অঙ্কের ঘরে যেতে পারেননি।

এর আগে আজ টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন সিলেট স্ট্রাইকার্স অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। প্রথম ওভারেই সাফল্য পায় তার দল। বেন কাটিংয়ের বলে আউট হন লিটন দাস। দ্বিতীয় উইকেটে ৪৭ রান যোগ করেন ইমরুল কায়েস ও মোহাম্মদ রিজওয়ান।

সামিত প্যাটেলের বলে অল্প সময়ের ব্যবধানে দুই ব্যাটারই সাজঘরে ফিরে যান। এর আগে কায়েস ৩০ ও রিজওয়ান ১৪ রান করেন। মাত্র ৮ রানে থাকতে রান আউট হন তাওহীদ হৃদয়। রস্টন চেজ ২ রানের বেশি করতে পারেননি।

সাতে নেমে খুশদিল শাহ ২১ রানে ফেরার পর বাকিটা পথ লড়াই করেন জাকের আলী। দলের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৯ রান করেন তিনি। সিলেটের হয়ে সামিত তিনটি, এনগারাভা দুটি এবং কাটিং ও সাকিব একটি করে উইকেট নেন।

Scroll to Top