২৫ জুলাই, ২০২৪
১০ শ্রাবণ, ১৪৩১
Mirror Times BD

৫৩১ রানে শ্রীলঙ্কাকে অলআউট করলো বাংলাদেশ

মিরর স্পোর্টস : কামিন্দু মেন্ডিস সোজাসুজি শট খেললেন, মাটিতে গড়ানো বল ধরেই নন স্ট্রাইকের স্টাম্প ভেঙে দিলেন। আসিথা ফার্নান্ডো তখনও ক্রিজের বাইরে। রানের খাতা না খুলেই আউট আসিথা। শ্রীলঙ্কা অলআউট হলো ৫৩১ রান করে। কামিন্দু ৯২ রানে অপরাজিত ছিলেন।

৫৩১ রানের বিশাল সংগ্রহ হলেও কারও ব্যাটে সেঞ্চুরি হয়নি। ছয় ব্যাটার হাফ সেঞ্চুরি করেছেন। টানা তৃতীয় ইনিংসে পঞ্চাশ ছাড়ানো ইনিংস খেলা কামিন্দু মেন্ডিসের দুর্ভাগ্য যে অন্য প্রান্তে আর কোনও সঙ্গী ছিল না। সেঞ্চুরি থেকে ৮ রান দূরে ছিলেন তিনি, তখনই অলআউট শ্রীলঙ্কা।

মন্থর পিচের সুবিধা কাজে লাগিয়ে শ্রীলঙ্কা বড় স্কোরই গড়েছে। এখন দেখার অপেক্ষা বাংলাদেশ কেমন জবাব দেয়? সব মিলিয়ে ১৫৯ ওভার বল করেছে তারা। সাকিব আল হাসান তিন উইকেট নিয়ে দলের সেরা বোলার।

লাহিরুকে ফিরিয়ে শ্রীলঙ্কাকে অলআউট করার পথে বাংলাদেশ

৪৬তম ওভারে এসে উইকেটের দেখা পেলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। স্লগ সুইপ করতে গিয়ে বলে ব্যাট লাগাতে পারেননি লাহিরু কুমারা। ৬ রানে বোল্ড হন তিনি। ৫১৮ রানে ৯ উইকেট হারালো শ্রীলঙ্কা।

অষ্টম উইকেট পেলো বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কার স্কোর পাঁচশ ছাড়িয়ে

কামিন্দু মেন্ডিসকে বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারলেন না বিশ্ব ফার্নান্ডো। সাকিব আল হাসানের বলে ঝুঁকি নিয়ে সিঙ্গেল নেন কামিন্দু। শান্তর থ্রোয়ে স্ট্রাইকিং প্রান্তে রান আউট হন বিশ্ব। ৪৯৭ রানে শ্রীলঙ্কার অষ্টম উইকেট পেলো বাংলাদেশ। সাকিবের পরের ওভারে চার মেরে দলীয় স্কোর পাঁচশ ছাড়ান নতুন ব্যাটার লাহিরু কুমারা।

পাঁচশ রানের হাতছানি নিয়ে চা বিরতিতে শ্রীলঙ্কা

৭ উইকেটে ৪৭৬ রান করে চা বিরতিতে গেলো শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশ দ্বিতীয় সেশনে দুটি উইকেট পেয়েছে, শ্রীলঙ্কা করেছে ৬৫ রান। ৭০ রানে ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে আউট করেন খালেদ আহমেদ। সাকিব পান প্রবাথ জয়াসুরিয়ার উইকেট। কামিন্দু মেন্ডিস ৫৪ রানে অপরাজিত। বিশ্ব ফার্নান্ডো রানের খাতা খুলতে পারেননি।

দীর্ঘ সময় পর উইকেট পেলো বাংলাদেশ

১৪০ বল করার পর বাংলাদেশ দেখা পেলো শ্রীলঙ্কার সপ্তম উইকেটের। সাকিব আল হাসান ভেঙে দিলেন ৬৫ রানের জুটি। প্রবাথ জয়াসুরিয়ার বিরুদ্ধে এলবিডব্লিউর আবেদন করে সফল হন বাংলাদেশি স্পিনার। ৪৭৬ রানে ৭ উইকেট পড়লো শ্রীলঙ্কার। প্রবাথ ৭৫ বলে ২৮ রানে আউট হন।

রিভিউয়ে শান্তদের হাসি কেড়ে নিয়ে কামিন্দুর হাফ সেঞ্চুরি

লাঞ্চের পর পর ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে ফিরিয়ে উল্লাসে মাতে বাংলাদেশ। তারপর প্রবাথ জয়াসুরিয়াকে তিন জন মিলেরও ক্যাচ নিয়ে বিদায় করতে পারেননি। তার সঙ্গে কামিন্দু মেন্ডিস শক্ত হাতে বাংলাদেশকে শাসন করছেন।

দুজনের জুটি এরই মধ্যে পঞ্চাশ ছাড়িয়ে গেছে। তবে কামিন্দুকে ফেরানোর উল্লাসে মেতেছিল বাংলাদেশ। ১৩৫তম ওভারে মেহেদী হাসান মিরাজের প্রথম বলে তার বিরুদ্ধে কট বিহাইন্ডের আবেদন জানায় স্বাগতিকরা। আম্পায়ার রিচার্ড ইলিংওর্থ আঙুল তুলে দেন। সঙ্গে সঙ্গে কামিন্দু রিভিউ নেন, আল্ট্রাএজে কোনও স্পাইক দেখা যায়নি। বাংলাদেশের আনন্দে পানি ঢালেন লঙ্কান ব্যাটার। পরে চলতি সিরিজে টানা তৃতীয় হাফ সেঞ্চুরিও করেছেন কামিন্দু, ৯৮ বলে ৫ চারে। ১৩৯ ওভারে সফরকারীদের রান ৬ উইকেটে ৪৭১ রান।

তিন জন মিলেও ক্যাচ নিতে পারলেন না!

খালেদ আহমেদ টানা দ্বিতীয় ওভারে উইকেট পেতে পারতেন। কিন্তু বিস্ময়করভাবে স্লিপের তিন ফিল্ডারের সুযোগ নষ্টের খেসারত দিতে হলো তাকে। প্রবাথ জয়াসুরিয়ার ব্যাট ছুঁয়ে বল যায় প্রথম স্লিপ দাঁড়ানো নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে। বল ফসকে ডানদিকে সরে যায়, দ্বিতীয় স্লিপে দাঁড়ানো ফিল্ডার শাহাদাত হোসেন দীপুর হাত থেকেও বল পিছলে যায়। তৃতীয় স্লিপে থাকা জাকির হাসান প্রাণপণে ডাইভ দিয়েছিলেন, কিন্তু বল তার নাগালের বাইরে ছিল। ৬ রানে জীবন পান প্রবাথ। ১২১ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ৪১৯ রান শ্রীলঙ্কার।

ধনঞ্জয়াকে মাঠছাড়া করলেন খালেদ

লাঞ্চের পর খালেদ আহমেদ তৃতীয় বলেই বড় উইকেট নিলেন। বাংলাদেশি পেসারের কাছে এলবিডব্লিউ হন ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। টানা তৃতীয় ইনিংসে সেঞ্চুরি হলো না তার। ১১১ বলে ৭০ রান করে থামেন লঙ্কান অধিনায়ক। আম্পায়ার আউটের সিদ্ধান্ত নিলেও রিভিউ নেন ধনঞ্জয়া, আম্পায়ার্স কলে আগের সিদ্ধান্ত বহাল থাকে। ৪১১ রানে ৬ উইকেট হারালো শ্রীলঙ্কা।

সিলেট টেস্টে ধনঞ্জয়া ও কামিন্দু মেন্ডিসের জুটি ২০২ ও ১৭৩ রানের হলেও এবার ৩৬ রানের বেশি হয়নি।

শক্ত অবস্থানে থেকে প্রথম সেশন শেষ শ্রীলঙ্কার

দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনেও বাংলাদেশের ওপর ছড়ি ঘুরালো শ্রীলঙ্কা। রবিবার লাঞ্চের আগে ২৮ ওভারে ৯৭ রান তুলেছে তারা। বাংলাদেশ কেবল একটি উইকেট পেয়েছে। সাকিব আল হাসানের বলে দিনেশ চান্ডিমাল ৫৯ রান করে লিটন দাসের ক্যাচ হন। ধনঞ্জয়া ডি সিলভার সঙ্গে ৮৬ রানের জুটি গড়েছিলেন তিনি। তারপর জুটি বেঁধেছেন সিলেট টেস্টে বাংলাদেশের অস্বস্তি বাড়ানো ধনঞ্জয়া ও কামিন্দু মেন্ডিস। ৩৬ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে লাঞ্চ বিরতিতে গেছেন তারা। ৭০ রানে ধনঞ্জয়া ও কামিন্দু ১৭ রানে অপরাজিত আছেন। শ্রীলঙ্কার রান ৫ উইকেটে ৪১১।

৪ উইকেটে ৩১৪ রানে দিনের খেলা শুরু করেছিল শ্রীলঙ্কা।

শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংস চারশ ছাড়িয়েছে

১১২তম ওভারে তাইজুল ইসলামের প্রথম বলে ডাবলস নিলেন ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। তাতে শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংসের স্কোর ছুঁলো চারশতে। ৫ উইকেট হারিয়ে এই রান করেছে তারা।

চান্ডিমালকে ফেরালেন সাকিব

অবশেষে দ্বিতীয় দিন প্রথম উইকেটের দেখা পেলো বাংলাদেশ। আগের দিনের অপরাজিত জুটিতে খেলতে নামা দিনেশ চান্ডিমাল ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে বিচ্ছিন্ন করলেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশি স্পিনারের বলে চান্ডিমাল লিটন দাসের গ্লাভসে ধরা পড়েন। ১০৪ বলে ৫ চার ও ২ ছয়ে ৫৯ রান করেন লঙ্কান ব্যাটার, ভাঙে ৮৬ রানের জুটি। ৩৭৫ রানে শ্রীলঙ্কা হারালো ৫ উইকেট।

চান্ডিমাল-ধনঞ্জয়ার হাফ সেঞ্চুরি

দ্বিতীয় দিন এক ঘণ্টারও বেশি সময় বোলিং করেছে বাংলাদেশ। কিন্তু আগের দিনের অপরাজিত জুটিতে থাকা দিনেশ চান্ডিমাল কিংবা ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে ফেরাতে পারেননি কেউ। বরং ১০১তম ওভারে চার মেরে ৮৫ বলে হাফ সেঞ্চুরি করেছেন চান্ডিমাল। ৭০ বলে ৬ চার ও ১ ছয়ে ফিফটির দেখা পেয়েছেন ধনঞ্জয়া ডি সিলভাও। শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক এনিয়ে টানা তিন ইনিংসে পঞ্চাশোর্ধ্ব রান করলেন। ১০৫ ওভারে ৪ উইকেটে ৩৭৫ রান শ্রীলঙ্কার।

দ্বিতীয় দিন কি রাঙাতে পারবে বাংলাদেশ?

প্রথম দিন বিবর্ণ কেটেছে বাংলাদেশের। চার উইকেটে ৩১৪ রানে দিনের খেলা শেষ করেছিল শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের বোলারদের নিষ্প্রভ বোলিং তাদের একটুও ভোগায়নি। রবিবার নতুন দিনের শুরু হয়েছে। শ্রীলঙ্কাকে যত তাড়াতাড়ি অলআউট করা যায়, ততই ভালো হবে স্বাগতিকদের জন্য। এখন দেখার অপেক্ষা, দিনটা রঙিন করে নিতে পারে কি না বাংলাদেশ।

প্রথম দিন বিবর্ণ বাংলাদেশ

সিলেট টেস্টে তাও বল হাতে শুরুটা ভালো হয়েছিল বাংলাদেশের, তারপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছিল। কিন্তু চট্টগ্রামে প্রথম দিনটা পুরোপুরি শ্রীলঙ্কার। নিশান মাদুশকা, দিমুথ করুণারত্নে ও কুশল মেন্ডিসের ব্যাটে ৪ উইকেটে ৩১৪ রানে দিন শেষ করেছে সফরকারীরা। তাদের টপ অর্ডার ব্যাটারদের দাপটে বিবর্ণ একটি দিন পার করলো বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের হয়ে হাসান মাহমুদ অভিষেকে ঝলক দেখিয়ে দুই উইকেট নেন। সাকিব আল হাসান ফিরে কুশল মেন্ডিসের গুরুত্বপূর্ণ উইকেটটি পান। শ্রীলঙ্কার প্রথম জুটি ভেঙেছে রানআউটে। ৯৬ রানে বিচ্ছিন্ন হন করুণারত্নে ও মাদুশকা। তারপর ১১৪ রানের শক্ত ‍জুটি গড়ে বাংলাদেশকে শাসন করেন করুণারত্নে ও কুশল। দুজনই সেঞ্চুরির হাতছানি পেলেও ব্যর্থ হন। ইনিংস সেরা ৯৩ রান করেন কুশল। ৮৬ রান করেন করুণারত্নে। প্রথম ইনিংসে রান পাহাড় গড়ার অপেক্ষায় শ্রীলঙ্কা।

দিনেশ চান্ডিমাল ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভা ২৫ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে দিন শেষ করেছেন। চান্ডিমাল ৩৪ ও ধনঞ্জয়া ১৫ রানে অপরাজিত।

⠀শেয়ার করুন

loader-image
Dinājpur, BD
জুলা ২৫, ২০২৪
temperature icon 30°C
overcast clouds
Humidity 79 %
Pressure 994 mb
Wind 6 mph
Wind Gust Wind Gust: 12 mph
Clouds Clouds: 97%
Visibility Visibility: 0 km
Sunrise Sunrise: 05:28
Sunset Sunset: 18:55

⠀আরও দেখুন

Scroll to Top