১৪ এপ্রিল, ২০২৪
১ বৈশাখ, ১৪৩১

সৈন্য প্রত্যাহারে শিগগিরই ইরাকের সঙ্গে আলোচনা শুরু করবে যুক্তরাষ্ট্র : সিএনএন

মিরর ডেস্ক : শিগগিরই সেনা প্রত্যাহারের আলোচনা শুরু করবে যুক্তরাষ্ট্র ও ইরাক। বিষয়টির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে সিএনএন এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘আগস্টে ঘোষণা করা উচ্চ সামরিক কমিশন সংলাপ শুরু করার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র এবং ইরাক চুক্তির কাছাকাছি।’ সংলাপের লক্ষ্য ভবিষ্যতে প্রত্যাহারের জন্য দৃঢ় পদক্ষেপ নির্ধারণ করা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওয়াশিংটন চায় সেনাদের সময়সূচি ইরাকের বর্তমান পরিস্থিতি ও তার সরকার ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার স্থিতিশীলতার প্রতিফলন ঘটাতে। পরিবর্তে, ইরাকি নেতৃত্ব বিশ্বাস করে, প্রত্যাহারের সময়সীমা কোন অবস্থাতেই প্রভাবিত হওয়া উচিত হবে না।

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শিয়া আল-সুদানী ৫ জানুয়ারি বলেছেন, আন্তর্জাতিক জোট ইরাকের মাটিতে তাদের উপস্থিতির ন্যায্যতা ফুরিয়ে গেছে এবং বাগদাদ দেশে বিদেশি সামরিক উপস্থিতি শেষ করার জন্য দৃঢ় পদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত।

তিনি আরও বলেন, ইরাক সরকার বিদেশি সৈন্য প্রত্যাহারের বিষয়টি মোকাবিলা করার জন্য প্রতিষ্ঠিত একটি দ্বিপাক্ষিক কমিশনের কাঠামোর মধ্যে আলোচনা শুরুর তারিখ নির্ধারণের প্রক্রিয়াধীন ছিল।

বাগদাদে মার্কিন ড্রোন হামলায় হারাকাত আল-নুজাবা আন্দোলনের একজন নেতা আবু তাকওয়া নিহত হওয়ার পর এই বিবৃতি এসেছে।

পরিবর্তে, পেন্টাগন ৮ জানুয়ারি বলেছিল, তারা এই মুহুর্তে ইরাক থেকে তাদের সৈন্য প্রত্যাহারের পরিকল্পনা করছে না। বর্তমানে, প্রায় আড়াই হাজার মার্কিন সেনা ইরাকের বিভিন্ন ঘাঁটিতে মোতায়েন রয়েছে। প্রতিরক্ষা বিভাগের মুখপাত্র প্যাট রাইডার বলেছেন, তিনি ইরাক সরকারের দায়ের করা ইস্যুতে কোনও অনুরোধ সম্পর্কে অবগত নন। তিনি আরও বলেন, ইরাকের বৈধ সরকারের অনুরোধে মার্কিন বাহিনী দেশটিতে অবস্থান করছে।

Scroll to Top