১৪ এপ্রিল, ২০২৪
১ বৈশাখ, ১৪৩১

রুশ নিয়ন্ত্রিত ডনেস্কে ইউক্রেনীয় গোলাবর্ষণে নিহত বেড়ে ২৫

মিরর ডেস্ক : রাশিয়ার দখলে থাকা ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় ডনেস্কে ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীর গোলাবর্ষণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫ জনে। রবিবারের এই হামলায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ২০ জন। অঞ্চলটির রুশ মনোনীত প্রধান ডেনিস পুশিলিন নিহতের সংখ্যা নিশ্চিত করেছেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

ডনেস্ক শহরের রুশপন্থি মেয়র আলেক্সেই কুলেমজিন বলেছেন, ইউক্রেনীয় সেনারা বাজার ও দোকানপাট থাকা একটি ব্যস্ত এলাকায় গোলাবর্ষণ করেছে।

পুশিলিন বলেছেন, শহরটিতে ইউক্রেনীয় কামানের গোলা আঘাত হেনেছে। এই হামলার বিষয়ে ইউক্রেনের কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি।
রয়টার্সের ছবি ও ভিডিওতে দেখা গেছে, ঘটনাস্থলে মানুষেরা কাঁদছেন। তাদের অনেকে স্বজনদের হারিয়েছেন। একটি বাজারে রক্তমাখা তুষারে মরদেহ পড়ে আছে।

পুশিলিন বলেছেন, হামলায় আরও অন্তত ১৩ জন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে জরুরিসেবার কর্মীরা কাজ করছেন। বিশেষজ্ঞরা হামলায় ব্যবহৃত অস্ত্রের খণ্ডাংশ সংগ্রহের চেষ্টা করছেন।

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এই হামলাকে ‘ইউক্রেনের একটি নৃশংস সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড’ হিসেবে উল্লেখ করেছে। এতে বলা হয়েছে, পশ্চিমাদের দেওয়া অস্ত্র ব্যবহার করে এই হামলা চালানো হয়েছে।

মস্কো বলেছে, বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে এই ষড়যন্ত্রমূলক হামলার নিন্দা জানাচ্ছে রাশিয়া।

প্রায় দুই বছর আগে ইউক্রেনে সর্বাত্মক আক্রমণ শুরু করে রাশিয়া। ডনেস্ক ও অন্যান্য অঞ্চলে ইউক্রেনীয় হামলায় বেসামরিক নিহতের ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে আসছে দেশটি। যদিও ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে রুশ বিমান হামলায় অনেক বেসামরিক নিহত হয়েছেন।

গত বছর ইউক্রেনের যে চারটি অঞ্চল রাশিয়া নিজের ভূখণ্ডে একীভূত করেছে ডনেস্ক সেগুলোর একটি। বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ রাশিয়ার এই উদ্যোগকে স্বীকৃতি দেয়নি। একীভূত করা চারটি অঞ্চলের পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ রাশিয়ার হাতে নেই।

পৃথক অগ্রগতিতে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় দাবি করেছে, রুশ সেনারা ইউক্রেনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় খারকিভ অঞ্চলের ক্রোখমালনে নামের একটি গ্রামের দখল নিয়েছে।

ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র নিশ্চিত করেছেন কিয়েভের সেনারা এলাকাটি থেকে পিছু হটেছে। কিন্তু তিনি বলেছেন, এই ভূখণ্ড আয়তনে খুব ছোট এবং সামগ্রিক সামরিক পরিস্থিতিতে এর কোনও প্রভাব থাকবে না।

Scroll to Top