১৪ এপ্রিল, ২০২৪
১ বৈশাখ, ১৪৩১

নার্সারিপড়ুয়া বান্ধবীকে উপহার দিল সোনার বার

মিরর ডেস্ক : নার্সারিপড়ুয়া চার বছরের এক শিশু তার সহপাঠী বান্ধবীকে সোনার একটি বার দিয়েছে। এমনি এমনি কিন্তু সে এই বার দেয়নি। শিশুটি তার ‘বাগ্‌দানের’ উপহার হিসেবে বান্ধবীকে এটি দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে চীনে।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট জানিয়েছে, চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় সিচুয়ান প্রদেশে গত ২২ ডিসেম্বর এমন ঘটনা ঘটেছে। আর সেই সোনার বারের মূল্য ১৫ হাজার মার্কিন ডলার (প্রায় ১৬ লাখ ৫০ টাকা)। বান্ধবী বাড়ি ফিরে মা–বাবাকে এ উপহার দেখানোর পর তাঁদের চোখ চড়কগাছ। শিশুকন্যার কাছ থেকে তাঁরা জেনেছেন, তার এক সহপাঠী তাকে এই বার দিয়েছে। এরপর নিজেরা আত্মস্থ হয়ে মেয়েকে বললেন, পরদিন স্কুলে গিয়ে যেন সে বন্ধুকে ওই সোনার বার ফেরত দেয়।

কন্যাশিশুটির মা বলেন, একপর্যায়ে তিনি ও তাঁর স্বামী মেয়ের ছেলেবন্ধুর মা–বাবার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করেন। ছেলের মা–বাবা তাঁদের কাছে ক্ষমা চান এবং বলেন, তাঁরাই ছেলেকে বলেছিলেন, তার ভবিষ্যৎ স্ত্রীর জন্য এই সোনার বার গচ্ছিত রাখা হয়েছে। কিন্তু তাঁরা আশা করেননি, এটা সে গোপনে নিয়ে কাউকে দেবে।

মেয়ের মা অন্যান্য অভিভাবককে এ বিষয়ে সচেতন থাকার আহ্বান জানান, যাতে এমন কিছু না ঘটে।
ইতিমধ্যে এ ঘটনা অনলাইনে বেশ মজা ও হাসির জন্ম দিয়েছে। ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা আদুরে এ বন্ধুত্বের প্রতি অনেক ভালোবাসা জানিয়েছেন। অনেকে আবার এ ধরনের অনেক অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন।

একজন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী লিখেছেন, ছোট্ট ছেলেটির সাহস আছে। অকপটে ২০০ গ্রাম ওজনের সোনার বার দিয়ে দিল।

আরেকজন লিখেছেন, ‘আমার শাশুড়ি আমাকে একটি ব্রেসলেট দিয়েছিলেন। আমার ছেলে জানতে চায়, সে তার সহপাঠীকে এটি দিতে পারে কি না। কারণ, তার সহপাঠী দেখতে সুন্দর। আমি মনে করছি, আমার তার প্রতি কৃতজ্ঞ থাকা উচিত। কারণ, সে আমার কাছে জানতে চেয়েছে।’

তৃতীয় আরেক ব্যক্তি লিখেছেন, ‘আমার মেয়ে যখন প্রথম শ্রেণিতে, তখন তার এক ছেলে সহপাঠী তাকে নগদ ২০০ ইউয়ান দিয়েছিল। জানার পর সেদিন সন্ধ্যায়ই ছেলের মা–বাবাকে তা দিয়ে দিয়েছিলাম।’

গত বছরের মে মাসে চীনের অল্প বয়সী এক ছেলে তার মায়ের সোনার একটি চুড়ি নিয়ে তার স্কুলের এক মেয়েকে দিয়ে দেয়। পরে ছেলেটির মা জানান, শ্রেণিশিক্ষক ঘটনাটি দেখতে পেয়ে তাকে সতর্ক করেছিলেন।

ওই মা পরে যখন ছেলের কাছে এমন কাজ কেন করেছে জানতে চেয়েছেন, সে তখন বলেছে, ওই মেয়েটি কিন্ডারগার্টেন থেকে তার বন্ধু। তাই সে তাকে ওই চুড়ি দিতে চেয়েছে।

Scroll to Top