২৩ মে, ২০২৪
৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১
Mirror Times BD

বগুড়ার শাপলা মার্কেটে আগুন, পুড়ে ছাই ঈদের কাপড়

বগুড়া  : বগুড়া শহরের শাপলা সুপার মার্কেটে আগুন লেগে ১৫টি দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রবিবার (৭ এপ্রিল) সকালে শহরের স্টেশন রোডের এ মার্কেটে আগুন লাগে।

ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিট প্রায় আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিভিয়ে ফেলেন। এ সময় ধোঁয়ায় মুরতাজ মিয়া নামে এক ফায়ার ফাইটার অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা দাবি করেছেন, আগুন লাগা দোকানের বেশির ভাগই কাপড়ের। আগুনে তাদের অন্তত দেড় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা জানান, রবিবার সকাল ৮টার দিকে বগুড়া শহরের স্টেশন রোডে শাপলা সুপার মার্কেটে আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তের মধ্যে আশপাশের ১৫ দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে বগুড়া ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি, শাজাহানপুর ও কাহালুর দুটি করে মোট নয়টি ইউনিট সেখানে আসে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের প্রায় আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিভিয়ে ফেলতে সক্ষম হন।

আগুন নেভাতে গিয়ে ধোঁয়ায় মুরতাজ মিয়া নামে এক ফায়ার ফাইটার অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, এ মার্কেটে শুধু কাপড় নয়; ছাপাখানা, কম্পিউটার, লন্ড্রি ও সেলাই কারখানা রয়েছে। তারা দাবি করেছেন, আগুনে তাদের ১৫ দোকানের মালামাল, নগদ টাকাসহ প্রায় দেড় কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। ঈদের আগে অনেক পোশাক আনা হয়। এ আগুনে তারা সর্বস্বান্ত হয়ে গেছেন।

মাসুদ নামে এক ব্যবসায়ী জানান, আগুনে তার দোকানের প্রায় ১৪ লাখ টাকা মূল্যের প্যান্ট ও গেঞ্জি পুড়ে গেছে। আল আমিন নামে এক কম্পিউটার ব্যবসায়ী জানান, তার দোকানে চারটি কম্পিউটারসহ চার লাখ টাকার মালামাল পুড়ে গেছে।

বগুড়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক মঞ্জিল হক জানান, ৯টি ইউনিট আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। ১৫ দোকানের মধ্যে ২-৩টি বেশি ক্ষতি হয়েছে। ব্যবসায়ীরা তাদের দেড় কোটি টাকার ক্ষতি দাবি করছেন। তবে তদন্ত ছাড়া আগুনের সূত্রপাত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়। ধোঁয়ায় অসুস্থ ফায়ার ফাইটার মুরতাজ মিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

⠀শেয়ার করুন

⠀আরও দেখুন

Scroll to Top